গাছগুলো ফেলে বেড়াতে যাই কিভাবে?

ঘর-দোর

গার্ডেনিং আপনার পেশন৷ মায়া-মমতায় ছাদ বাগান কিংবা ব্যাক ইয়ার্ডে আপনি আর গাছের একটা জগৎ আছে৷ কোথাও ঘুরতে গেলেও তাদের জন্য মন ব্যাকুল থাকে৷ আহা, বেচারিরা জল পায়নি৷ পাতাগুলো ঝড়ে যাবে না তো? গাছটা শুকিয়ে যাবে না তো? ক’টা দিন দূরে থাকলে এমন কতক প্রশ্ণ ঘোরাঘুরি করে৷ ভাবনা নেই৷ উপায় আছে৷ হাসপাতালে রোগীদের দীর্ঘ সময় ধরে একটু একটু ডোজ ওষুধ দিতে হলে যেমন সিরিঞ্জ পাম্প কাজে লাগে৷ তেমন ব্যবস্থা আছে গাছে জল দেবার জন্যও৷

আপনার বড় কাজে আসতে পারে অটোমেটিক ইরিগেশন স্পাইক৷ একটি বিশেষ ধরনের নল৷ যাতে জল ভর্তি বোতল যুক্ত করা যায়৷ বোতলের মুখ খুলে সেখানে ছিপির মতোই ঘুরিয়ে স্পাইকটি লাগানো যায়৷ এরপর সেটি গাছে জল দেওয়ার জন্য ব্যবহার করা হয়৷ বোতলভর্তি স্পাইকের সঙ্গে যুক্ত করে গাছের মাটিতে গেঁথে দিতে হবে৷ গাছের পাশে স্থাপন করার পর স্পাইকের সঙ্গে যুক্ত নলটি জল পড়ার জন্য খুলে দিতে হবে৷ স্যালাইনের মতো মিনিটে কত ফোঁটা জল চান, তার ওপর ভিত্তি করে নলটি সেট করতে হবে৷ জল পড়ার গতির ওপর নির্ভর করে একটি ১ লিটার জলের বোতল খালি হতে ২ থেকে ৬ ঘণ্টা পর্যন্ত সময় লাগতে পারে৷ গাছের গোড়ায় ফোঁটায় ফোঁটায় জল দেওয়ার ব্যবস্থাকে বলে ড্রিপ ইরিগেশন সিস্টেম৷ বড় বড় নার্সারিতে পেয়ে যাবেন এই ইরিগেশন স্পাইক৷

সলতের সাহায্যেও আপনার অনুপস্থিতিতে গাছের জল পাওয়ার ব্যবস্থা করা যেতে পারে৷ এর জন্য লাগবে বালতি ও পাটের দড়ি৷ টবের পাশে বালতিতে জল রাখুন৷ পাটের দড়ি ভিজিয়ে এর এক প্রান্ত জলে ডুবিয়ে রাখুন৷ অন্য প্রান্তটি টবের মাটির তিন ইঞ্চি ভেতরে পুঁতে দিন৷ মাটি শুকিয়ে এলে দড়ির সাহায্যে বালতি থেকে জল টবে চলে আসবে৷ তবে ঠিকমতো কাজ করছে কি না পরীক্ষা করে নিন৷ প্রয়োজনে বড় বালতি ব্যবহার করুন৷

অনেকগুলো গাছে জলের ব্যবস্থা করতে হলে বড় বোতল ব্যবহার করুন৷ প্লাস্টিকের বড় জলের বোতল নিয়ে মুখে কয়েকটি ফোঁটা করুন৷ এবার বোতলটি উল্টো করে মাটির এক থেকে দুই ইঞ্চি গভীরে পুঁতে দিন৷ তার আগে অবশ্যই মাটি ভিজিয়ে নিতে হবে৷ এই প্রক্রিয়ায় মাটি শুকালেই বোতল থেকে অল্প অল্প করে জল মাটিতে প্রবেশ করবে৷

খবরের কাগজের মাধ্যমে খুব ভালো করে গাছগুলোতে জলের ব্যবস্থা করে যেতে পারেন৷ যাবার আগে টবে ভালো করে জল দিয়ে যান৷ পুরোনো খবরের কাগজ মুঠো করে নিয়ে জলে ভিজিয়ে সেই দলা টবগুলোর আশপাশে সাজিয়ে রাখুন৷ এতে বেশ কিছুদিন গাছ তরতাজা থাকবে৷

তবে, যে পদ্ধতিই প্রয়োগ করুন না কেন, গাছকে প্রত্যক্ষ সূর্যালোকে রাখবেন না৷ তা হলে গাছের কাজে লাগার আগেই জল বাষ্পীভূত হয়ে যাবে৷ তাই গাছ আলো পাবে কিন্তু রোদ পাবে না এমন জায়গায় টবগুলো রাখুন৷ এই পদ্ধতিতে সপ্তাহখানের নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন৷ তারও বেশি দিন যদি বাইরে থাকতে হয়, তাহলে গাছের দায়িত্ব কাউকে দিয়ে যাওয়াই ভালো৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *