যত্নের কাঁচ-পাথর

ঘর-দোর

মধ্যবিত্ত থেকে উচ্চবিত্ত, কাঁচ-পাথরের জিনিসের শখ কার না আছে! পাওয়াও যাবে অধিকাংশ বাড়িতে। অবহেলায় কিন্তু এগুলো নষ্ট হতে পারে। যত্ন যখন আবশ্যিক, তখন কিভাবে কোনটার যত্ন নেয়া যায় তা জেনে রাখাই ভালো।

কাঁচের নকশাদার সমগ্রী দুই সপ্তাহ পর ডিটারজেন্টের সাহায্যে পরিষ্কার করুন।না পারলে মাসে অত্যন্ত একবার সময় বের করতে চেষ্টা করুন।কাঁচের জিনিসটি ডিটারজেন্ট জলে পরিষ্কার করার পর জল দিয়ে আবার পরিষ্কার করুন।ছোট আকারের জিনিস হলে ডিটারজেন্ট মেশানো জলে কিছুক্ষণ ডুবিয়ে রাখতে পারেন।এরপর পরিষ্কার জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।কাঁচ পরিষ্কারের জন্য বিশেষ ধরনের স্প্রে কিনতে পাওয়া যায়।ডিটারজেন্টের পরিবর্তে এ ধরনের স্প্রে ব্যবহার করতে পারেন।তবে খাঁজের অংশগুলো পরিষ্কার করতে ব্রাশও চাই।

পাথরের নকশা করা জিনিস পরিষ্কার করার সময় বাড়তি সতর্কতা প্রয়োজন।এমন সামগ্রী পরিষ্কার করার সময় তেল বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার না করাই ভালো। বরং শুকনো ব্রাশের সাহায্য সাবধানে পরিষ্কার করুন।যে কোন কিছু পরিষ্কার করার পর খেয়াল রাখুন,যেন পরিষ্কার দ্রব্যটি লেগে না থাকে।বিশেষ করে খাঁজকাটা অংশগুলোর ব্যপারে সচেতনতা প্রয়োজন।আসবাবের নকশাদার অংশগুলো পরিষ্কার করার সময় এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তের দিকে কাপড় বা ব্রাশ টেনে নেবার সময় খেয়াল করুন,শেষ প্রান্তে সব ময়লা যেন আটকে না থাকে। খাঁজের এক প্রান্তে ময়লা জমে থাকলে আবার ব্রাশের সাহায্যে পরিষ্কার করে নিন।পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার জন্য প্রয়োজনীয় জিনিসগুলো (যেমন ব্রাশ,কাপড় ইত্যাদি)একসঙ্গে সংরক্ষণ করুন।রাখুন হাতের কাছে। এতে পরিষ্কার করার সময় এসব জিনিস খুঁজতে বাড়তি সময় ব্যয় হবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *