সাগরপাড়ে মধুচন্দ্রিমায় কী পরবেন?

জীবনতরী সাজগোজ

বেড়ানো আর সাজ-পোশাকের সাথে নিবিড় যোগ আছে৷ আর সেই বেড়ানো যদি হয় ‘হানিমুন’, তাহলে তো ব্যাপারই আলাদা৷ মনোরম পরিবেশে দু’জনে সুন্দর সময় কাটানো, কমফোর্ট, অ্যালবামে সাজিয়ে রাখার কিংবা বন্ধুদের সাথে শেয়ার করার মতো ছবি তোলা কতকি করতে হয়৷ সেই ছবি পোস্ট করে লাইক আর কমেন্টের দিকেও কি মন যেতে পারে না?
ঘুরে বেড়ানোর মুহূর্তগুলোয় পোশাক আরামদায়ক না থাকলে অস্বস্তি তৈরি হয়৷ মধুচন্দ্রিমা হলে তো পরিকল্পনা গুছিয়ে নেওয়াই ভালো৷ প্রয়োজনে বিয়ের আগে থেকেই প্রস্তুতি নিন৷ কারণ এটার জন্য প্রস্তুতিতে আবার মধুচন্দ্রিমায় যেন প্রভাব না পড়ে৷
সমুদ্র বা পাহাড়ের পাশে, পৃথক জায়গা, ভিন্ন ধরনের পোশাকই মানানসই৷ ধরে নেওয়া যাক আপনার মধুচন্দ্রিমা হচ্ছে সাগরপাড়ে৷ যেখানে যাচ্ছেন, সেখানকার আবহাওয়ার বিষয়টিও মাথায় রাখুন৷ সাগরের পাড় ধরে হেঁটে যাওয়ার সময় পোশাকটি জর্জেটের হলে ভালো৷ শিফন বা জলে ভিজলে তাড়াতাড়ি শুকিয়ে যাবে এমন কাপড়ের পোশাকও থাকতে পারে পরনে৷ সিল্কের শাড়ি বা কম ফোলানো লম্বা কাটের গাউনও রাখতে পারেন একটি বা দুটি, রাতের বিশেষ ডেটের জন্য৷ সিল্কের শাড়ি নিলে পরতে ঝামেলা কম হবে৷ পশ্চিমা পোশাকে অভ্যস্ত থাকলে টি-শার্ট, ফতুয়ার সঙ্গে দুইটি প্যান্ট নিয়ে নিতে পারেন৷ থাকতে পারে স্কার্ট, টপ৷ এখন অনেকেই প্যান্টের সঙ্গে একই নকশার শার্ট বা পাতলা কাপড়ের জ্যাকেট পরে সামনের দিকে বোতাম খোলা রাখছেন৷ ভেতরে ট্যাংটপ বা বুস্টিয়ার পরছেন৷ স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করলে সে ধরনের স্টাইলও করতে পারেন৷


এখন যেহেতু গরম, প্যান্টের রং হতে পারে সাদা বা হালকা৷ ছেলেদের জন্য টি-শার্ট, শার্ট যেটাই নিন, কাপড়টি যেন হয় লিনেন বা সুতি৷ শার্টের ওপর থাকতে পারে বাটিক কিংবা ফুলের জংলা নকশা৷ চাইলে স্বামী-স্ত্রী রং মিলিয়েও পোশাক পরতে পারেন৷ মসলিনের পোশাকও থাকতে পারে একটি বা দুটি৷ তবে নকশার কারণে যেন আবার গরম না লাগে, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে৷ জুতার বিষয়েও একই কথা প্রযোজ্য৷ বালুর ওপর, জলের ওপর হেঁটে আরাম পাবেন, এমন স্যান্ডেল নিয়ে যেতে হবে৷ বাড়তি এক জোড়া ভালো জুতা রাখুন সঙ্গে৷
সমুদ্রের পাশে হাঁটু পর্যন্ত মিডি ড্রেসগুলোয় আরাম পাবেন৷ মাথার জন্য হ্যাট ব্যবহার করুন৷ পোশাকে থাকতে পারে বাঙি, ফিরোজা, কমলা, লাল, গোলাপি, সাদা, নীল ইত্যাদি রং৷ যাঁরা ছবি তুলতে পছন্দ করেন, তাঁরা পোশাকের দিকে একটু বেশি মনোযোগ দিলে ভালো হয়৷
বিয়ের ব্যস্ততার ভেতর অনেক সময়ই প্রয়োজনীয় জিনিসগুলো নেওয়া হয় না৷ একটু আগে থেকে গুছিয়ে রাখলে আপনারই সুবিধা৷ সানস্ক্রিন, শিট মাস্ক, কনসিলার, সানস্ক্রিনসহ প্রাইমার, বিবি বা সিসি ক্রিম, মেকআপ রিমুভার, মাসকারা, কাজল, আইব্রো পেনসিল, ফেসওয়াশ, পারফিউমই যথেষ্ট৷
খুব বেশি মেকআপ ব্যবহার না করাই ভালো৷ যতটুকু সম্ভব, চেহারা সতেজ রাখুন৷ অনেকেরই ভ্রমণের সময় চোখ, মুখ ফুলে থাকে৷ সানগ্লাস সঙ্গে রাখুন৷ রোদ থেকে চোখ ঢাকতে এবং ক্যামেরা থেকে চোখের ফোলা ভাব ঢাকতে সুবিধা হবে৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *